শিরোনাম:
ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১
Swadeshvumi
রবিবার ● ১৯ নভেম্বর ২০২৩
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » এদেশের নির্বাচন পদ্ধতি কেমন জানতে চেয়েছে কমনওয়েলথ
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » এদেশের নির্বাচন পদ্ধতি কেমন জানতে চেয়েছে কমনওয়েলথ
১২৭ বার পঠিত
রবিবার ● ১৯ নভেম্বর ২০২৩
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

এদেশের নির্বাচন পদ্ধতি কেমন জানতে চেয়েছে কমনওয়েলথ

---

# কমনওয়েলথ পাঠাতে পারে ৬০ সদস্যের পর্যবেক্ষক দল

নিজস্ব প্রতিবেদক 

বাংলাদেশে কোন পদ্ধতিতে নির্বাচন হয় তা নির্বাচন কমিশনের কাছে জানতে চেয়েছে কমনওয়েলথের প্রাক-নির্বাচনী পর্যবেক্ষক দল। আসন্ন নির্বাচনে ভোটাররা কীভাবে ভোট দিতে যাবেন, ভোট কীভাবে নেওয়া হবে; ভোট স্বচ্ছ করতে হলে রিটার্নিং ও প্রিসাইডিং অফিসারের কাজ কী- এসব বিষয় তারা জানতে চেয়েছে। 

আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) আগারগাঁও নির্বাচন ভবনের সভাকক্ষে কমনওয়েলথ প্রাক-নির্বাচনী পর্যবেক্ষক দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম এসব তথ্য সাংবাদিকদের জানান। ইসি সচিব বলেন, ‘কমনওয়েলথের চার সদস্যের প্রতিনিধিদল আমাদের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন, তাদের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। আমাদের দেশের নির্বাচনের আইন-কানুন, বিধি-বিধান, নির্বাচনের দিনে যানবাহন ব্যবস্থাপনার বিষয়ে ইসির কাছ থেকে অবহিত হতে এসেছিলেন তারা। প্রধান নির্বাচন কমিশনার নির্বাচন কমিশনের পক্ষে তাদের কাছে সবকিছু উল্লেখ করেছেন। এটা যেহেতু তাদের প্রাক-নির্বাচনী দল, সফর শেষে এই দল কমনওয়েলথে গিয়ে রিপোর্ট দাখিল করবেন। পরে তাদের একটি পূর্ণাঙ্গ টিম আমাদের নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে আসবেন’। 

রাজনৈতিক বিষয়ে কোন আলোচনা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে ইসির মুখপাত্র বলেন, ‘তাদের সঙ্গে রাজনৈতিক কোনো আলোচনা হয়নি। শুধু নির্বাচন পদ্ধতি, আইন-কানুন ও বিধি-বিধান নিয়েই কথা হয়েছে। কীভাবে ভোটাররা ভোট দেবেন, কীভাবে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা ভোট দেবেন- এসব বিষয়ে জানতে চেয়েছে। এছাড়া ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা ও বিদেশে যারা আছেন, তারা কীভাবে ভোট দেবেন- এসব বিষয়েও তারা আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন’। সচিব আরও জানান, ইসির পক্ষ থেকে তাদের সব বিষয়ে অবগত করা হয়েছে, তারা সন্তুষ্ট। তারা সব কিছু দেখে রিপোর্ট পাঠাবেন এবং পর্যবেক্ষক আসবে কি না সে সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে জানান ইসি সচিব।

---

প্রতিনিধিদল যা বলছেন

সিইসির সভাকক্ষে ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে প্রতিনিধি দলের প্রধান লিনফোর্ড এন্ড্রো জানান, প্রি-ইলেকশন অ্যাসেসমেন্ট মিশনের সহকর্মীদের নিয়ে শনিবার বাংলাদেশে এসেছে নির্বাচনপূর্ব পরিস্থিতি মূল্যায়নে কমনওয়েলথের সদস্য রাষ্ট্রের যে কোনও দেশে অবজারভার পাঠানো এক ধরনের প্রথা। তিনি বলেন, ‘আমরা কয়েকটি উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করি। এরই অংশ হিসেবে নির্বাচন কমিশনসহ নানাধরনের অংশীজনের সঙ্গে আলোচনা করা হচ্ছে। ৭ জানুয়ারির নির্বাচনকে সামনে রেখে সার্বিক প্রস্তুতি অবহিত হওয়ার পাশাপাশি বিরাজমান পরিবেশসহ পর্যবেক্ষণ করছি আমরা।’

কমিশনকে ধন্যবাদ দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের মধ্যে বেশ ভালো আলোচনা হয়েছে। (নির্বাচনের জন্য) কতটা প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে, তা জানতে পেরেছি। সামনের দিকে তাকিয়ে আছি, আমাদের আরও কিছু অংশীজনের সঙ্গে আলোচনা হবে। ২২ নভেম্বর আমাদের লন্ডন ফিরে যাওয়ার কথা। তারপর কমনওয়েলথ সেক্রেটারি জেনারেলের কাছে সুপারিশসহ প্রতিবেদন জমা দেবো’। বিরাজমান পরিস্থিতি নিয়ে কোনো ধরনের আগাম মন্তব্য করতে চাননি তিনি।

আলোচনায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল এর নেতৃত্বে চার নির্বাচন কমিশনার এবং সচিবসহ উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। কমনওয়েলথ এর পক্ষ থেকে বৈঠকে নেতৃত্ব দেন সংস্থাটির উপদেষ্টা ও ইলেক্টোরাল সাপোর্ট সেশন প্রধান লিনফোর্ড অ্যান্ড্রু। তার সঙ্গে ছিলেন- সংস্থাটির রাজনৈতিক উপদেষ্টা লিন্ডিউই মালেলেকা, ইলেক্টোরাল সাপোর্ট সেকশনের নির্বাহী কর্মকর্তা জিপ্পি ওযাগো, রাজনৈতিক বিভাগ (এশিয়া) এর সহকারী গবেষণা কর্মকর্তা সার্থক রায়।

---

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, পর্যবেক্ষক দলটি আগামী ২২ নভেম্বর পর্যন্ত ঢাকায় থাকবে। সফরকালে পররাষ্ট্র, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, নির্বাচন কমিশনসহ বিভিন্ন মহলের সঙ্গে এই প্রতিনিধিদলটির বৈঠক করার কথা রয়েছে। সফর শেষে এই দলের পক্ষ থেকে যে প্রতিবেদন দেওয়া হবে তার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত হবে, এই নির্বাচনে কমনওয়েলথ থেকে পর্যবেক্ষক দল পাঠানো হবে কিনা। এদিকে পরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এবারের সংসদ নির্বাচনে কমনওয়েলথ থেকে ৬০ সদস্যের একটি নির্বাচন পর্যবেক্ষক দল আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

এর আগেও বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে ভোট পর্যবেক্ষণ নিয়ে বৈঠক করেছে ইসি। এরই মধ্যে ইউরোপীয়, যুক্তরাষ্ট্রের একটি সংস্থা ভোট পর্যবেক্ষণ করবে বলে জানিয়েছে। এছাড়া বিদেশি পর্যবেক্ষকদের ভোট পর্যবেক্ষণের জন্য দূতাবাসগুলোর মাধ্যমে ২১ নভেম্বরের মধ্যে আবেদনও আহ্বান করেছে ইসি।

এদিকে ইসি সূত্রে জানা গেছে, সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণের জন্য রাশিয়াসহ পৃথিবীর ৫০টির মতো দেশকে আমন্ত্রণ জানাবে নির্বাচন কমিশন। বিদেশি পর্যবেক্ষক আসার জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে দূতাবাসগুলোতে আবেদন আহ্বান করা হয়েছে। তাদের আবেদনের শেষ সময় ২১ নভেম্বর। ইতোমধ্যে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা আবেদন করেছে। এদেশের সংসদ ভোট পর্যবেক্ষণের জন্য ব্যক্তি পর্যায়েও কেউ কেউ আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, কমনওয়েলথ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এনডিআই, আফ্রিকান ইলেক্টোরাল অ্যালায়েন্স থেকে ১১ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল ও অস্ট্রেলিয়ান একজন নাগরিক আবেদন করেছেন। এ বিষয়ে ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ জানিয়েছেন, এসব আবেদন আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে চূড়ান্ত করা হবে। 

এছাড়া পৃথিবীর বিভিন্ন নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সংস্থা, যেগুলোতে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন সদস্য, তাদেরও ভোটের সময় আমন্ত্রণ জানানো হবে। এক্ষেত্রে ৫০টির মতো দেশকে আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে। তাদের মধ্যে রয়েছে- রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, উজবেকিস্তান, পাকিস্তান, ভারত, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, নেপাল, ভুটান এবং আফগানিস্তান। অন্যদিকে সংস্থাগুলোর মধ্যে ওয়ার্ল্ড ইলেকশন বডি, ফেমবোসা, সার্ক, অ্যাসোসিয়েশন অব আফ্রিকান ইলেকশন অথরিটির চেয়ারম্যান, মহাসচিবদেরও আমন্ত্রণ জানানো হবে।

বিগত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পৃথিবীর বিভিন্ন সংস্থার ৩৮ জন পর্যবেক্ষক নির্বাচন পর্যবেক্ষণের জন্য এসেছিলেন। এছাড়া বিভিন্ন দূতাবাসের ১৩১ জন কূটনৈতিক-কর্মকর্তা ভোট পর্যবেক্ষণ করতে বাংলাদেশে এসেছিলেন।



বিষয়: #



আর্কাইভ